২ সপ্তাহে গাজায় জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুত ৯ লাখ ফিলিস্তিনি

২ সপ্তাহে গাজায় জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুত ৯ লাখ ফিলিস্তিনি

গাজার দক্ষিণাঞ্চলীয় শহর রাফায় নতুন করে হামলা শুরু করেছে ইসরাইলি সামরিক বাহিনী। এ কারণে প্রাণে বাঁচতে ওই অঞ্চলসহ অন্য এলাকা থেকে ৯ লাখের বেশি ফিলিস্তিনি বাস্তুচ্যুত হয়েছে বলে জানিয়েছে জাতিসঙ্ঘ।

মঙ্গলবার কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, জাতিসঙ্ঘের মানবিক কার্যালয় এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, গত ৬ মে থেকে রাফাহ শহরের পূর্বাঞ্চল ও গাজার উত্তরাঞ্চল থেকে জীবন বাঁচাতে প্রায় ৯ লাখ ফিলিস্তিনি বাস্তুচ্যুত হয়েছে।

জাতিসঙ্ঘ আরো জানিয়েছে, ইসরাইলের সামরিক অভিযানের মধ্যে গত দুই সপ্তাহে গাজার জনসংখ্যার ৪০ শতাংশ বা ৯ লাখেরও বেশি মানুষ অভ্যন্তরীণ এবং জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুত হয়েছে।

এদিকে ইউএনআরডাব্লিউএ জানিয়েছে, ‘বাস্তুচ্যুত মানুষগুলো লাগামহীন ক্লান্তি, ক্ষুধা ও ভয়ের মুখোমুখি হচ্ছে। তাদের যাওয়ার মতো নিরাপদ জায়গা নেই। পরিস্থিতি মোকাবেলায় অবিলম্বে একটি যুদ্ধবিরতিই আমাদের একমাত্র আশা।’

উল্লেখ্য, ফিলিস্তিনি সংগঠন হামাস গত বছরের ৭ অক্টোবর ইসরাইলে আকস্মিক বড়ো ধরনের হামলা চালায়। এ সময়ে তারা প্রায় এক হাজার ১৭০ ইসরাইলিকে হত্যা এবং ২৫০ জনকে বন্দী করে। এখনো হামাসের কাছে ১২৮ জন বন্দী হিসেবে আটক রয়েছে।

এদিকে ৭ অক্টোবর ইসরাইল গাজায় প্রতিশোধমূলক পাল্টা হামলা শুরু করে যা এখনো চলছে। গাজায় ইসরাইলের অব্যাহত এ হামলায় ৩৫ হাজার ৫৬২ ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছে। এদের অধিকাংশ নারী ও শিশু। আহত হয়েছে আরো ৭৯ হাজার ৬৫২ ফিলিস্তিনি। সূত্র : আল-জাজিরা