রাইসির মৃত্যু ইরানের জন্য ‘বড় ক্ষতি’: পুতিন

রাইসির মৃত্যু ইরানের জন্য ‘বড় ক্ষতি’: পুতিন

ইরানের প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসির মৃত্যুতে দেশটির ‘বড় ক্ষতি’ হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। ইরানের সঙ্গে সখ্যতা বজায় রাখারও প্রতিশ্রুতি পুনর্ব্যক্ত করেছেন তিনি। মঙ্গলবার পার্লামেন্টের নিম্ন কক্ষ বা স্টেট ডুমার এক বৈঠকে এ মন্তব্য করেছেন পুতিন। সেখানে তিনি বলেছেন, রাইসি রাশিয়ার একজন নির্ভরযোগ্য অংশীদার এবং কাজের একজন মানুষ ছিলেন। এ খবর দিয়েছে তুর্কি বার্ত সংস্থা আনাদোলু।

বুধবার তেহরানে রাইসির শেষকৃত্য অনুষ্ঠানে যোগ দিচ্ছে রাশিয়ার একটি প্রতিনিধি দল। এই প্রতিনিধিদলের নেতৃত্ব দিচ্ছেন রুশ নেতা ভলোদিন। রাইসির ট্রাজিক মৃত্যুতে পুতিনের মর্মাহত হওয়ার বিষয়টি ভলোদিনকে তেহরানের কাছে পৌঁছে দেওয়ার কথাও জানিয়েছেন পুতিন।

রুশ প্রেসিডেন্ট বলেছেন, রাইসির মৃত্যু ইরান সরকার এবং দেশটির জন্য ‘বড় ক্ষতি’। তিনি রাশিয়ার একজন নির্ভরযোগ্য অংশীদার ছিলেন। রাইসিকে পুতিন একজন আত্মবিশ্বাসী বন্ধু বলেও স্বীকার করেছেন। পুতিন আরো বলেন, রাইসি জাতীয় স্বার্থে অনুপ্রাণিত একজন মানুষ ছিলেন, এবং তার সঙ্গে কাজ করতে পেরে আমি আনন্দিত ছিলাম।

চুক্তি সম্পন্ন করতে রাইসি ছিল অতুলনীয়। এদিকে মস্কো তেহরানের সঙ্গে বন্ধুত্ব বজায় রাখবে বলেও প্রতিশ্রুতি পুনর্ব্যক্ত করেছেন পুতিন। তিনি বলেছেন, মস্কো তেহরানের সঙ্গে সহযোগিতা অব্যাহত রাখতে প্রস্তুত কারণ ইরান এখনও রাইসি প্রশাসনের অধীনে রয়েছে। এছাড়া রাশিয়া-ইরান সম্পর্ক যাতে আগের মতো অব্যাহত থাকে সে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন রুশ নেতা।

এর আগে ১৯ই মে এক মর্মান্তিক হেলিকপ্টার দুর্ঘটনায় নিহত হন ইরানের প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসি। দুর্ঘটনাকবলিত ওই হেলিকপ্টারে ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আমির আব্দুল্লাহিয়ান সহ আরো সাত ব্যক্তি নিহত হন। গত রোববার আজারবাইজানে একটি বাঁধ উদ্বোধন অনুষ্ঠান থেকে ইরানের তাবরিজে যাওয়ার পথে বিধ্বস্ত হয় ওই হেলিকপ্টারটি। পরে সোমবার সকালে উদ্ধারকর্মী দল ঘটনাস্থলে পৌঁছায় এবং হেলিকপ্টারে থাকা সকলের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করে তারা।