ইসলাম বিদ্বেষের ফল এই নারকীয় হত্যাকাণ্ড: আল নুর মসজিদের ইমাম

ইসলাম বিদ্বেষের ফল এই নারকীয় হত্যাকাণ্ড: আল নুর মসজিদের ইমাম

ক্রাইস্টচার্চের আল নুর মসজিদের ইমাম জামাল ফাওদা বলেছেন, দুটি মসজিদে অর্ধশত মুসল্লি নিহত হওয়ার ঘটনা একদিনে ঘটেনি। কিছু রাজনৈতিক নেতা, সংবাদমাধ্যম এবং অন্যদের মুসলিমবিদ্বেষী প্রচারের ফল হচ্ছে এই হত্যাকাণ্ড।-খবর গার্ডিয়ানের

শুক্রবার জুমার নামাজের খুতবায় তিনি বলেন, গত সপ্তাহের এই হত্যাকাণ্ড প্রমাণ করেছে, সন্ত্রাসবাদের কোনো রঙ নেই, বর্ণ নেই ও ধর্ম নেই।

তিনি বলেন, শ্বেতাঙ্গ বর্ণবাদ ও উগ্রবাদ বিশ্বের জন্য বড় হুমকি হয়ে দাঁড়িয়েছে। এখনই যার অবসান হওয়া উচিত।

‌‘ইসলাম বিদ্বেষের কারণেই এ হত্যাকাণ্ড। নিউজিল্যান্ডের বিশ্বের বিভিন্ন দেশের সরকারগুলোর প্রতি আমার অনুরোধ, আপনারা ঘৃণা প্রচার ও ভয়ের রাজনীতি পরিহার করুন।’

ক্রাইস্টচার্চে হামলায় অর্ধশত মুসল্লি নিহত হওয়ার এক সপ্তাহ পার হয়ে গেছে। আজ শুক্রবার আল নুর মসজিদটি মেরামতের পর প্রথম জুমার নামাজ আদায় হয়েছে। এতে হাজার হাজার মুসল্লি অংশ নিয়েছেন।

এদিকে মসজিদে হামলায় নিহতদের সবার পরিচয় নিশ্চিত করা হয়েছে। সংশ্লিষ্ট পরিবারগুলোকে অবগতও করা হয়েছে।

লাশগুলো এখন তাদের কাছে হস্তান্তর করা হচ্ছে। এর আগে মঙ্গলবার ৩০ জনের লাশ শনাক্তের পর পরিবারের হাতে তুলে দেয়া হয়। এর মধ্যে প্রথম ধাপে বুধবার পাঁচজনের লাশ ‘ক্রাইস্টচার্চ মেমোরিয়াল সিমেটারি’ কবরস্থানে দাফন করা হয়।

এদিকে হত্যাযজ্ঞের এক সপ্তাহ পর আজ ফের খুলে দেয়া হচ্ছে ক্রাইস্টচার্চের আল নুর ও লিনউড মসজিদ। এ দুই মসজিদেই জুমার নামাজ অনুষ্ঠিত হবে।

নামাজের সময় মুসল্লিদের মসজিদের বাইরে নিরাপত্তায় থাকবে মোটরসাইকেলচালকদের স্থানীয় তিনটি গ্রুপ।

অস্ত্র আইনে পরিবর্তন এনে স্বয়ংক্রিয় ও আধা-স্বয়ংক্রিয় রাইফেল বিক্রি নিষিদ্ধ করতে যাচ্ছে নিউজিল্যান্ড। সেই সঙ্গে সব ধরনের অ্যাসল্ট রাইফেলও নিষিদ্ধ করবে দেশটির সরকার।

এমজে/