সেই আতিক এখন ঢাকার মেয়র

সেই আতিক এখন ঢাকার মেয়র

রানা প্লাজার দুর্ঘটনা নিয়ে অসাধারণ একটি অনুসন্ধানী প্রতিবেদন করেছিলো কানাডার সিবিসি টেলিভিশন। ওয়ালমার্টের কোনো একটি স্টোর থেকে একটি শার্ট কিনে সেটি নিয়ে রিপোর্টার মার্ক কেলি গিয়েছিলেন ঢাকা। শার্টের লেবেলের সূত্র ধরে তিনি খুঁজে বের করেছিলেন কোন ফ্যাক্টরিতে শার্টটি বানানো হয়েছিলো।

সিবিসির অনুসন্ধানে দেখা গেল, কালো তালিকাভূক্ত একটি ফ্যাক্টরিতে শার্টটি তৈরি হয়েছে। সিবিসির রিপোর্টার খুঁজে বের করলেন ফ্যাক্টরির মালিক সেই সময়কার বিজিএমইএ প্রেসিডেন্ট আতিকুল ইসলামকে।

শার্টটি নিয়ে রিপোর্টার গেলেন আতিকুল ইসলামের কাছে। আতিকুল ইসলাম বললেন, কোন শার্ট কোথায় তৈরি হয় -এটা তো বলা সম্ভব নয়।

পোর্টার যখন জানালেন, এটি তার কারখানায়ই তৈরি, তিনি তখন শার্টটি দেখতে চাইলেন। শার্টটি হাতে নিয়ে গিয়ে বসলেন নিজের চেয়ারে। তারপর শার্টটি ফেরত দিলেন রিপোর্টারকে।

প্রতিবেদনের শেষ দিকে এসে রিপোর্টার জানালেন, আতিকুল ইসলাম শার্টটি নিয়ে তার ট্যাগ এবং কানাডিয়ান ইম্পোর্ট বারকোড নম্বরের উপর কালি লেপ্টে দিয়েছেন যাতে এটি যে তার কারখানায় তৈরি হয়েছে সেটি আর বের না করা যায়।

নাছোড়বান্দা রিপোর্টার পরের দিন আবার গেলেন আতিকুলের কাছে। জানতে চাইলেন, শার্টের লেবেলগুলো কেন তিনি নষ্ট করে দিয়েছেন?

আতিক অস্বীকার করলেন। সেই আতিক এখন ঢাকার মেয়র। ওয়ালমার্টের শার্টের বারকোড নষ্ট করে ফেলার মতোই তিনি কি ভেবেছিলেন, ফুটওভার ব্রিজে আবরার হত্যার স্মৃতিকে তিনি মুছে ফেলবেন? সূত্র : বাংলা

(সওগাত আলী সাগর, কানাডা প্রবাসী সাংবাদিক। লেখাটি তার ফেসবুক প্রোফাইল থেকে নেওয়া।)