ঢাবিতে ছাত্রদল নেতাদের ওপর ছাত্রলীগের হামলা

ঢাবিতে ছাত্রদল নেতাদের ওপর ছাত্রলীগের হামলা

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রদলের নেতা-কর্মীদের ওপর হামলার অভিযোগ উঠেছে ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে। আজ মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে ৪ টার রাজধানীর নীলক্ষেত ফাঁড়ির সামনে এ হামলার ঘটনা ঘটে। ছাত্রদলের পক্ষ থেকে জানান হয়েছে, হামলায় তাদের বেশ কয়েকজন নেতা-কর্মী আহত হয়েছেন। তাঁদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ছাত্রদল সূত্রে জানা গেছে, আহতরা হলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদলের সভাপতি খোরশেদ আলম সোহেল, সাধারণ সম্পাদক আরিফুল ইসলাম আরিফ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আবদুল জলিল আমিনুল, ফারহান মোহাম্মদ আরিফ, সহ সাধারণ সম্পাদক মুন্সি সোহাগ, এস এম হলের সভাপতি নাসির উদ্দীন শাওন, সাধারণ সম্পাদক রাজু আহমেদ, ছাত্রদলকর্মী জোসেফ আল জুবায়ের।

তারা সবাই গুরুতর আহত হয়ে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য মো. আখতারুজ্জামানের সঙ্গে আজ মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে ৪টায় দেখা করতে চেয়েছিলেন ছাত্রদলের নেতা-কর্মীরা। গতকাল সোমবার ছাত্রদলের পক্ষ থেকে এই কথা বলার পরপরই শিক্ষার্থীদের সমস্যা-সংকট সমাধানে উপাচার্যকে স্মারকলিপি দেওয়ার কর্মসূচি ঘোষণা করে ছাত্রলীগ। পাশাপাশি তারা ছাত্রদলকে প্রতিহত করার ঘোষণা দেওয়া হয়। ঘোষণা অনুযায়ী, আজ বিকেলে ক্যাম্পাসে ঢুকতে গেলে ছাত্রদলের নেতা-কর্মীদের ওপর হামলা চালায় ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা।

প্রত্যক্ষদর্শীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, উপাচার্যের সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে বিকেল ৪টা ২৮ মিনিটে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রদলের সভাপতি খোরশেদ আলম ও সাধারণ সম্পাদক আরিফুল ইসলামের নেতৃত্বে ক্যাম্পাসে ঢুকছিলেন সংগঠনের ৩০ থেকে ৩৫ নেতা-কর্মী। এ সময় স্যার এ এফ রহমান হল শাখা ছাত্রলীগের এক কর্মী মিছিলের সামনে দাঁড়িয়ে যান। ছাত্রদলের নেতাদের সঙ্গে তাঁর ধাক্কাধাক্কি ও তর্কাতর্কি শুরু হয়। একপর্যায়ে উপাচার্যের জন্য ছাত্রদলের আনা ফুলের তোড়া ভেঙে ফেলেন ওই কর্মী। পরে এ এফ রহমান হল শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি রিয়াজুল ইসলামের নেতৃত্বে একদল নেতা-কর্মী দৌড়ে এসে লাঠিসোঁটা ও স্ট্যাম্প দিয়ে ছাত্রদলের নেতা-কর্মীদের পেটাতে শুরু করেন। আরেকটি অংশ ছাত্রদলের নেতা-কর্মীদের ধাওয়া করে। এতে ছাত্রদলের নেতা-কর্মীরা ছত্রভঙ্গ হয়ে যান।

ছাত্রদলের নেতা-কর্মীরা চলে যাওয়ার পর নীলক্ষেত মোড়ে আসেন কবি জসীম উদদীন হল শাখা ছাত্রলীগ ও বিজয় একাত্তর হল শাখা ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা। ছাত্রদলের নেতা-কর্মীদের ধাওয়া করে ক্যাম্পাস থেকে বের করে দেওয়ার পর এই দুই হলের নেতা-কর্মী ও এ এফ রহমান হলের নেতা-কর্মীরা নীলক্ষেতের মুক্তি ও গণতন্ত্র তোরণের সামনে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ করেন। ১৫ মিনিটের মতো ছাত্রদলবিরোধী স্লোগান দেওয়ার পর তাঁরা ক্যাম্পাসের দিকে চলে যান।

ছাত্রলীগের এ হামলাকে ন্যক্কারজনক বলে আখ্যা দিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক আরিফুল ইসলাম। ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে তিনি প্রথম আলোকে বলেন, ‘ছাত্রলীগের হামলায় আমাদের বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন। আমরা এ ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ জানাই ও হামলাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই।’