সব ব্যাংকের টাকা লুট করা হয়েছে, অভিযোগ রিজভীর

সব ব্যাংকের টাকা লুট করা হয়েছে, অভিযোগ রিজভীর

বাংলাদেশ ব্যাংকসহ সব ব্যাংকের টাকা লুট করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

সোমবার রাজধানীর মতিঝিল সোনালী ব্যাংকের সামনে জাতীয়তাবাদী শ্রমিক দলের উদ্যোগে ‘প্রতারণার শিকার হয়ে মালয়েশিয়াগামী শ্রমিক সোহেল তানভীরের আত্মহত্যার ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়ে’ এক বিক্ষোভ সমাবেশে তিনি এ অভিযোগ করেন।

রিজভী বলেছেন, বাংলাদেশ ব্যাংক, সোনালী ব্যাংকসহ সকল ব্যাংক এখন খালি। সব ব্যাংকের টাকা লুট করা হয়েছে। ব্যাংকে গিয়ে দেখবেন, শুধু চেয়ার ও টেবিল পড়ে আছে। তারা বাংলাদেশের সকল আর্থিক প্রতিষ্ঠান শেষ করে দিয়েছে।

তিনি বলেন, আমরা বাংলাদেশের মানুষ এক দমবন্ধ করা পরিস্থিতির মধ্যে বসবাস করছি, দিনযাপন করছি। একদিকে সরকারি আক্রমণ, একদিকে গুম খুন ও ক্রসফায়ার, আরেকদিকে ক্ষুধা-দারিদ্রতার বঞ্চনায় মানুষ আত্মহত্যা করছে। পিতা-মাতারা তার সন্তান বিক্রি করে দিচ্ছে।

রিজভী বলেন, বাংলাদেশ-মালয়েশিয়া সরকারের মধ্যে চুক্তি হয়েছে, প্রতি ব্যক্তি যারা মালয়েশিয়া যাবেন তাদের লাগবে ৭৮ হাজার পাঁচশ টাকা। অথচ দুষ্টচক্র ৫ লাখ ৪০ হাজার টাকা নিয়েছে। একদিকে ছাড়পত্র হয়েছে, পাসপোর্ট হয়েছে, সকল প্রস্ততি শেষ হওয়ার পরও আজকে হাজার হাজার শ্রমিক মালয়েশিয়া যেতে পারেনি। বাংলাদেশের এই যে চক্র তারা কারা? তারা প্রধানমন্ত্রীর ঘনিষ্ঠ লোক। গত ১৬ বছর ধরে এভাবে তারা গোটা জনগণকে প্রতারিত করছে।

এভাবে আমাদের আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো শেষ করে দিয়েছে সরকার।

শ্রমিক দলের সভাপতি আনোয়ার হোসাইনের সভাপতিত্বে সমাবেশে এসময় আরও বক্তব্য রাখেন বিএনপি চেয়ারপারসনের বিশেষ সহকারী শামসুর রহমান শিমুল বিশ্বাস, সাংগঠনিক সম্পাদক অধ্যক্ষ সেলিম ভূঁইয়া প্রমুখ।