নেইমার-এমবাপ্পে ছাড়াই ৮ গোল, শেষ মিনিটে পিএসজির হতাশা

নেইমার-এমবাপ্পে ছাড়াই ৮ গোল, শেষ মিনিটে পিএসজির হতাশা

চ্যাম্পিয়নস লিগের ম্যাচ সামনে রেখে দলের দুই সেরা তারকা নেইমার ও এমবাপ্পেকে বিশ্রামে রেখেই মঙ্গলবার মাঠে নেমেছিল পিএসজি।

আর তার খেসারত দিতে হলো দলটিকে। ম্যাচে না হারলেও ড্র নিয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হয়েছে কোচ টমাস টুখেলকে।

এদিকে নেইমার-এমবাপ্পেবিহীন খেলায় গোলের বন্যায় ভেসেছে দুই দল। সমর্থকরা জয়োল্লাস না করতে পারলেও ৯০ মিনিটের বিনোদন নিয়েই বাড়ি ফিরেছেন। পুরো ম্যাচে হয়েছে ৮ গোল!

শনিবার রাতে এমিয়েন্সের বিপক্ষে নেমে ৪০ মিনিটের মধ্যে ৩ হজম করে পিএসজি। সমর্থকরা অনেকটা অসহায় হয়েই নেইমার আর এমবাপ্পেকে মিস করছিল।

ম্যাচের ৫ মিনিটেই গিরাসির গোলে এগিয়ে যায় এমিয়েন্স। কাকুতা আর দিয়াবাতের গোল মিলিয়ে ৪০ মিনিটে ব্যবধান ৩-০তে ইগিয়ে থাকে দলটি।

চরম হতাশা নিয়ে মাঠের দিকে তাকিয়ে থাকেন পিএসজির সমর্থকরা। এ সময় দলের ত্রাতা হয়ে আসেন হেরেরা।

৪৫ মিনিটে তার গোলে ব্যবধান কমে। ৩-১ ব্যবধানে বিরতিতে যায় পিএসজি।

রূপকথার মতো এক জয়ের স্বপ্নে বিভোর হয়ে দ্বিতীয়ার্ধে নামে এমিয়েন্স।

কিন্তু ইতিমধ্যে স্বরূপে ফিরে এসেছে পিএসজি। দ্বিতীয়ার্ধে ৬০ থেকে ৬৫ এই ছয় মিনিটের মধ্যে কাউয়াসির দুই গোলে ম্যাচে সমতা আনেন।

এর পর ৭৪ মিনিটে মাউরো ইকার্দি গোল করে পিএসজিকে লিড এনে দেয়। দর্শকদের উল্লাস উদযাপন চিত্র পুরোটাই পাল্টে যায়।

দ্বিতীয়ার্ধে এসেও হেরে যাওয়ার শঙ্কা করছিলেন যারা, তারা এখন নাটকীয় জয়ের ক্ষণ গুনছিলেন।

স্কোরবোর্ডে ৩-৪ ব্যবধানে জয় নিয়েই মাঠ ছাড়তে পারত পিএসজি। কিন্ত ইনজুরি টাইমে গিয়ে অর্থাৎ ৯১ মিনিটে গিরাসির গোলে নাটকীয় ম্যাচটি শেষ হয় ৪-৪ সমতায়।

এই ড্রয়ের পর ২৫ ম্যাচে ৬২ পয়েন্ট নিয়ে লিগের পয়েন্ট তালিকার শীর্ষেই আছে পিএসজি। দুইয়ে থাকা মার্শেইয়ের পয়েন্ট ২৪ ম্যাচে ৪৯।

এমজে/